অবশেষে বন্ধ হল সোনারগাঁ বৈদ্যেরবাজার এলাকার মেঘনা নদী ভরাট

32

ফরিদ হোসেন-সোনারগাঁ প্রতিনিধি: অবশেষে বন্ধ করা হল মেঘনা নদী ভরাট। গতকাল বুধবার দুপুরে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের উপ-পরিচালক মো. শহীদুল্লাহ’র নেতৃত্ত্বে অন্যান্য সহকারী পরিচালকরা সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে নদী ভরাট বন্ধ করে দেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপরিচালক এহেতাশেমুল পারভেজ, সহকারী পরিচালক শাহআলম, সহকারী তত্ত্বাবধায়ক জাহাঙ্গীর।
সরেজমিনে পরিদর্শনে এসে উপ-পরিচালক সংবাদিকদের জানান, আমাদের সহকারী তত্ত্ববধায়ক সম্প্রতি ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে আমাদের পূর্ণাঙ্গ বিষয়টি অবগত করেন। আজ আমরা এসে যা দেখলাম তা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। এতবড় দূর্ণীতি প্রকাশ্যে যেভাবে হচ্ছে তা অবিশ^াস্য। আমরা দেখেছি আল মোস্তফা গ্রুপের মালিকানাধীন ইউরো মেরিন শিপ বিল্ডার্স নামক প্রতিষ্ঠানটি স্থানীয় কিছু অসাধু ব্যক্তিদের সহায়তায় বৈদ্যেরবাজার এলাকায় নদীর পশ্চিম দিকে ২০০০ী৭০০ বর্গফুট পরিমান মেঘনা নদীর তীরভূমি ভরাট করেছে। তাই এক সপ্তাহের মধ্যে ভরাটকৃত বালু নিজ খরচে সরিয়ে নিতে নোটিশ দেওয়া হয়েছে এবং ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোনারগাঁও থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। আমাদের বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে যদি মেঘনা নদীর ওই স্থান পূর্বের ন্যায় ফিরিয়ে না আনা হয়, তাহলে আমরা বালু সরিয়ে তা নিলামে বিক্রি করে দিব আর যাবতীয় খরচ ওই প্রতিষ্ঠান থেকে কি ভাবে আদায় করা যায় তা দেখব। পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
উল্লেখ্য, বৈদ্যেরবাজার এলাকায় আল মোস্তফা গ্রুপের অন্যতম প্রতিষ্ঠান ইউরো মেরিন শিপ বিল্ডার্স নামে একটি প্রতিষ্ঠান গত একমাস ধরে মেঘনা নদীর তীরবর্তী খাস জমি, নদী ও সওজ এর জায়গা অবৈধ দখল করে স্থানীয় ভূমি দস্যুদের সহায়তায় ভরাট করে দখল নিচ্ছে। বিষয়টি স্থানীয় ও জাতীয় কিছু পত্রিকায় প্রকাশ হলে টনক নড়ে বিআইডব্লিউটিএ’র। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল বুধবার সরেজমিনে এসে বালু ভরাট বন্ধ করেন। ###