সোনারগাঁয়ের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে মানববন্ধন

5274

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জ-৩ সোনারগাঁ আসনের জাতীয় পার্টির লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা বলেছেন, অনির্বাচিত এই এমপি তার এমপি হওয়ার প্রভাব খাটিয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগের মূল দল ও অঙ্গ সংগঠনে ভাঙন সৃষ্টি করছে। ফলে সোনারগায়ে আওয়ামীলীগ বিরোধী দল। ক্ষমতার অপব্যবহার করে এমপি খোকা কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচী (কাবিখা), টেস্ট রিলিফ (টিআর), এডিপি ও সোলার প্যানেল নির্মাণের পুরো টাকা তার নিজস্ব কর্মী বাহিনীর নামে বেনামে কমিটি দেখিয়ে পুরো টাকা আত্মসাৎ করেছেন। সনমান্দি ইউনিয়নের মশুরাকান্দা, হামছাদী ও হযরতপুর গ্রামের কৃষক ও গরু ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কোরবানীর দেওয়ার জন্য ২৯টি গরু ক্রয় করে বেপারীদের এখন পর্যন্ত গরুর টাকা পরিশোধ করেননি।
সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগ এ মানববন্ধন আয়োজন করে। বৃহস্পতিবার বেলা দুইটায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সোনারগাঁ যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি মাছুম চৌধূরী, সহ-সভাপতি রাশেদ উদ্দিন আহমেদ, সাধারন সম্পাদক আলী হায়দার, সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী কামাল হোসেন, প্রচার সম্পাদক নাসির উদ্দিন আহমেদ, সহ-সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম স্বপন। দশটি ইউনিয়নের যুবলীগের সেক্রেটারি,ম পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি সাধারন সম্পদক উপস্থিত ছিলেন।
মানববন্ধনে সোনারগাঁ যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু বলেন, জাতীয় পার্টির এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা বিএনপি জামায়াতের এজেন্ট হিসেবে আমাদের দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের নামে একাধিক মিথ্যা মামলা ও হয়রানী করছে। তার কারণে আমাদের দল ক্ষমতায় থাকার পরও আমরা বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের মতো কোনঠাসা হয়ে পড়েছি। এমপি খোকার কারণে সারা দেশে আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন দল হলেও সোনারগাঁ যেন বিরোধী দল।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের দৃষ্টি আকর্ষন করে তারা বলেন, নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনের জাতীয় পার্টির দলীয় এমপি বিনাভোটে জয়ী হওয়ার পর থেকে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত । দলের কিছু বিপথগামী নেতাকর্মীকে ভুল বুঝিয়ে সোনারগাঁ যাদুঘরের পাশে রয়েল রিসোর্ট নামের একটি অভিজাত হোটেলে বসে নেতাকর্মীদের ভুল বুঝিয়ে আমাদের মূল দল ও অঙ্গ সংগঠনে ভাঙন সৃষ্টি করছে।
জাতীয় পার্টির এ এমপির দুনীর্তি ও অনিয়মের কারণে আজ সোনারগাঁয়ে আমাদের দলের জনপ্রিয়তা কমতে শুরু করেছে। ক্ষমতার অপব্যবহার করে এমপি খোকা কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচী (কাবিখা), টেস্ট রিলিফ (টিআর), এডিপি ও সোলার প্যানেল নির্মাণের পুরো টাকা তার নিজস্ব কর্মী বাহিনীর নামে বেনামে কমিটি দেখিয়ে পুরো টাকা আত্মসাৎ করেছেন। সরকারের এসব উন্নয়নমূখী কাজের টাকা আত্মসাতের বিষয়ে সরকারের উচ্চমহল ও বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবী জানান তারা।
মানববন্ধনে তারা আরো বলেন, এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা সোনারগাঁ উপজেলার সনমান্দি ইউনিয়নের মশুরাকান্দা, হামছাদী ও হযরতপুর গ্রামের কৃষক ও গরু ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কোরবানীর দেওয়ার জন্য ২৯টি গরু ক্রয় করে বেপারীদের এখন পর্যন্ত গরুর টাকা পরিশোধ করেননি। কৃষক ও বেপারীরা ৩ বছর ধরে তার দ্বারে দ্বারে টাকা চেয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। টাকা না দিয়ে সে বেপারীদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। তার স্ত্রী ডালিয়া লিয়াকত মানুষের প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকুরী দেওয়ার নাম করে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে। এমপি খোকার প্রত্যক্ষ মদদে ও সহযোগিতায় মেঘনা নদীর বালু মহাল লুটপাট হচ্ছে। সোনারগাঁয়ের মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় যানজটের প্রধান কারণ এমপি, তার ভাই ও ভাতিজাদের নেতৃত্বে মহাসড়ক অবৈধভাবে দখল করে স্থাপনা ও অবৈধ যানবাহনের ষ্ট্যান্ড নির্মাণ। সোনারগায়ের পিরোজপুরে একটি হাউজিং কোম্পানীর হয়ে কোটি কোটি টাকার বালু ভরাটের কাজ করেছে। যেসব মানুষ জমি বিক্রি করতে চায়নি জোর করে তাদের জমিতে বালু ফেলে জমি বিক্রিতে বাধ্য করেছে।
সোনারগায়ে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির মধ্যে সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাপক দ্বন্দ্ব তৈরী হয়েছে। এমপি খোকা গত মঙ্গলবার উপজেলা পরিষদে এক ইফতার মাহফিলে বক্তব্য দিতে গিয়ে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুর বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখেন। এর পর পর এ মানববন্ধন আয়োজন করা হলো। রফিকুল ইসলাম নান্নু মানববন্ধনে বলেন, আমি তার মিথ্যা অপপ্রচারের তীব্র নিন্দা জানাই। সে সোনারগাঁয়ের সাবেক জনপ্রিয় এমপি সাংসদ আবদুল্লাহ আল কায়সার ও তার পরিবারসহ ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা তার অপকর্মের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে বক্তব্য দিয়ে তাকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে।#