সাত খুনের মামলায় রায়ে আইনজীবিদের প্রতিক্রিয়া

218

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের মামলায় রায়ে মামলার বাদিপক্ষের আইনজীবি সাবেক পিপি এডভোকেট সুলতানুজ্জামান বলেন, এ রায়ে আমার আসামী তারেক সাঈদ সন্তুষ্ট হতে পারেন নি। তার পরিবার সন্তুষ্ট হতে পারেনি। কারন তিনি মনে করেন মামলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আদালতে সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়নি। তারা এ ব্যাপারে উচ্চাদালতে আপিল করবেন। সেখানে তিনি এ রায়ের বিরুদ্ধে প্রতিকার পাবেন আমি মনে করি।
মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামী নূর হোসেনের আইনজীবি নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা বলেন, আমি মনে করি আমার আসামী মামলায় ন্যায্য বিচার পায়নি। আমরা উচ্চাদালতে এ ব্যাপারে আপিল করবো।
মামলার বাদিপক্ষের আইনজীবি এডভাকেট সাখাওয়াৎ হোসেন খান বলেন, সাত খুনের নৃশংস ঘটনার পর বিচারের দাবীতে আমরাসহ সাড়া দেশের আইনজীবি ও সাধারন মানুষ আন্দোলন সংগ্রাম করেছে। আমরা আইনী লড়াই করেছি। সেসব আন্দোলন ও আইনী লড়াইয়ের শেষে আজ রায় এ রায়ে আমি সন্তুষ্ট। রায় যাতে দ্রুত কার্যকর করা হয় সে দাবী জানাচ্ছি। এ মামলাটিতে যে সাক্ষ প্রমাণ এসেছে এর মধ্যে ২১ জন নিজেদের দোষ স্বিকার করে স্বিকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এবং ২২ জন প্রতক্ষদর্শী সাক্ষিসহ অনেক সাক্ষি এ মামলায় সাক্ষ দিয়েছে। ফলে মামলার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। উচ্চাদালতে এ মামলা থেকে আসামীরা রেহাই পাবে বলে আমি মনে করিনা।
সকাল নয়টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে থাকা আঠারোজন আসামীকে কোর্ট হাজতে এনে আনা হয়।     সকাল নয়টা চল্লিশ মিনিটে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে আনা হয়
জেলা ও দায়রা জজ আদালতে লেঃ কর্নেল (বরখাস্তকৃত) তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, এনসিসি’র সাবেক কাউন্সিলর নূর হোসেন, মেজর (বরখাস্তকৃত) আরিফ হোসেন, লেফটেন্যান্ট কমান্ডার (বরখাস্তকৃত) এম এম রানাসহ পাচ আসামীকে আনা হয়। নয়টা একচল্লিশ মিনিটে আদালতে তাদের তোলা হয়। সকাল দশটা এগারো মিনিটে আদালত মামলার রায় ঘোষনা শুরু করেন। রায় ঘোষনার পর বেশ কয়েকজন আসামী কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। তবে নূর হোসেন, তার সহযোগি চার্চিল, র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তা ছিলেন নির্বিকার। র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তাকে আদালতে গরাদের বাইরে রাখা হয়।
রায় ঘোষনা উপলক্ষে আদালত, আশেপাশের এলাকাসহ নারায়ণগঞ্জ শহরে নেয়া হয় ব্যপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা। প্রায় পাচশ পুলিশ নিরাপত্তার দায়িত্বে মোতায়েন ছিলেন। #