ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের পক্ষে-বিপক্ষে না’গঞ্জে আইনজীবীদের দুই পক্ষ মুখোমুখি, উত্তেজনা

75

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের পক্ষে-বিপক্ষে নারায়ণগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ ও বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা একে অপরের মুখোমুখি হয়ে পড়েছিল। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। তবে শেষ পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই উভয় পক্ষের সমাবেশ ও মিছিল সম্পন্ন হয়। কর্মসূচি পালনকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষ একে অপরের মুখোমুখি হয়ে পড়লে আদালতের সাধারণ আইনজীবীদের মধ্যে ভীতি ছড়িয়ে পড়ে।
রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নিচ তলায় সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের প্রতিবাদ জানিয়ে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখা। তাদের কর্মসূচি চলার সময় পাশেই জাতীয়তাবাদি আইনজীবী ফোরামের নেতা কর্মীরা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের বিপক্ষে কথা বলায় সাবেক প্রধান বিচারপতি ও আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এবিএম খায়রুল হকের অপসারণ ও গ্রেফতার দাবি করে সমাবেশ শুরু করে।
এদিকে আইনজীবী সমিতি ভবনের নিচে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের নেতা কর্মীরা তাদের সমাবেশ শেষ করে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে আদালত প্রাঙ্গণ প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় আইনজীবী সমিতি ভবনের নিচে এসে দেখে ওই স্থান দখল করে জাতীয়তাবাদি আইনজীবী ফোরামের নেতা কর্মীরা তাদের সমাবেশ শুরু করেছে। এনিয়ে উভয় পক্ষের আইনজীবীদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। তখন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের নেতা কর্মীরা আদালত প্রাঙ্গণে তাদের বিক্ষোভ মিছিল অব্যাহত রাখেন। অবস্থা বেগতিক দেখে জাতীয়তাবাদি আইনজীবী ফোরামের নেতৃবৃন্দ তড়িঘড়ি তাদের সমাবেশ সংক্ষিপ্ত করে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে।
এ ব্যাপারে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু বলেন, রাজনীতিতে শিষ্টাচার বলে একটি কথা আছে। বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা সেই শিষ্টাচার ভুলে গেছেন। আমাদের কর্মসূচি শেষ না হতেই তারা চর দখলের মতো করে আমরা যেখানে কর্মসূচি শুরু করেছিলাম সে স্থান দখল করে তাদের কর্মসূচি শুরু করে দেয়।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, আমরা ভেবেছিলাম আওয়ামী লীগপন্থি আইনজীবীদের কর্মসূচি শেষ হয়ে গেছে। তাই আমরা ওই স্থানে সমাবেশ শুরু করেছিলাম।
এদিকে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের বিরোধীতা করে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশে আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু বলেন, সর্বোচ্চ আদালতের রায় নিয়ে আমাদের কোন বক্তব্য নেই। কিন্তু রায়ের পর্যবেক্ষণে বিচার্য বিষয়ের বাইরে অনাকাঙ্খিত যে বক্তব্য এসেছে তা সুয়োমুটো দিয়ে এক্সপাঞ্চ করার দাবি জানাচ্ছি। কারণ সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে আমাদের পবিত্র সংসদ, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধকে কটাক্ষ করা হয়েছে। তাই এসব ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আইনজীবীদের প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে সাবেক প্রধান বিচারপতি এবং আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এবিএম খায়রুল হকের বিরুদ্ধে বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের উস্কানিমূলক বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাই।
বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট ওয়াজেদ আলী খোকন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাবিব আল মুজাহিদ পলু, সাবেক পিপি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান, সাবেক জিপি অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবীর, অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েল, অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন, অ্যাডভোকেট জালাল উদ্দিন, অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান, অ্যাডভোকেট মেরিনা বেগম প্রমুখ।
অপর দিকে জাতীয়তাবাদি আইনজীবী ফোরামের বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকার দেশের স্বাধীন বিচার ব্যবস্থার উপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে চায়। তা না পেরে নিজেদের আজ্ঞাবহদের দিয়ে বিচারক এবং রায়ের বিরুদ্ধে কথা বলাচ্ছে। এমনকি সরকার তাদের পক্ষে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের বিপক্ষে সাবেক প্রধান বিচারপতি এবং আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এবিএম খায়রুল হককে দিয়ে কথা বলিয়েছে। তাই আইন কমিশনের চেয়ারম্যানের পদ থেকে সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হকের অপসারণ এবং তাকে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়।
বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপিরা সহসভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন, অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান শাহিন, অ্যাডভোকেট রিয়াজুল ইসলাম আজাদ, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম মোল্লা, অ্যাডভোকেট মাসুদা বেগম শম্পা, অ্যাডভোকেট আজিজুল হক হান্টু, অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন সবুজ, অ্যাডভোকেট জিল্লুর রহমান, অ্যাডভোকেট গোলাম হোসেন প্রমুখ।
আদালতে আইনজীবীদের দুইপক্ষের মুখোমুখি অবস্থান সর্ম্পকে জানতে চাইলে ফতুল্লা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) শাহজালাল বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলের পাশে অবস্থান নেয়। তবে অপ্রীতিকর কোন কিছুই ঘটেনি।#