শীতলক্ষ্যা-ধলেশ্বরী সংযোগ খাল খনন উদ্বোধন করেন মেয়র আইভী

1424

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: দূষণমুক্ত, পরিবেশ বান্ধব নগরী গড়তে শীতলক্ষ্যা-ধলেশ্বরী সংযোগ খাল খনন কর্মসূচীর উদ্বোধন করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। খাল খনন প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে দুষনমুক্ত পরিবেশ গঠন, নগরের সৌন্দর্য্য বর্ধন ও জনগনের চিত্তবিনোদনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন স্থানীয়রা। আজ সোমবার সকালে শীতলক্ষ্যা-ধলেশ্বরী সংযোগ খালের শীতলক্ষ্যা থেকে মন্ডলপাড়া পর্যন্ত প্রথম পর্যায়ের খাল খনন কাজের উদ্বোধন করেন মেয়র।

ncc mayor ivএ সময় উপস্থিত ছিলেন ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস সহ নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন পেশাজীবি, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সংস্কার ও দৃষ্টিনন্দন লেক নিমার্ণ করার জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২৯০ কোটি টাকা। চারটি ধাপে কাজটি সম্পন্ন করা হবে। প্রথম ধাপে প্রায় ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে শীতলক্ষ্যা নদীর র্তীরবর্তী মীনা হোটেলের পাশ থেকে মন্ডলপাড়া মোড় পর্যন্ত খাল খনন , খালের দুই পাড় সংস্কার, ওয়ার্কওয়ে নির্মাণ এবং দৃষ্টিনন্দন লেক নির্মাণ করা হবে। শীতলক্ষ্যা-ধলেশ্বরী সংযোগ খাল খনন চার পর্বে করা হবে। আজ প্রথম পর্বের কাজ শুরু করা হলো। খাল খনন প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে দুষনমুক্ত পরিবেশ গঠন, নগরের সৌন্দর্য্য বর্ধন ও জনগনের চিত্তবিনোদনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে জানিয়ে মেয়র বলেন, পর্যায়ক্রমে নগরীর সব খাল অবৈধ দখল মুক্ত করে সবুজায়ন নগরী গড়ে তোলা হবে।
নগরবাসীর কাংখিত শীতলক্ষ্যা-ধলেশ্বরী সংযোগ খালটি খনন হলে একদিকে যেমন পরিবেশ দুষনমুক্ত হবে, অন্যদিকে নগরের সৌন্দর্য্য বর্ধন বৃদ্ধির পাশাপশি চিত্তবিনোদনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন স্থানীয়রা।

নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষণা অনুযায়ী দুষনমুক্ত পরিবেশ গঠন, নগরের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি ও জনগনের চিত্তবিনোদনের জন্য শীতলক্ষ্যা-ধলেশ্বরী সংযোগ খালটি খনন শুরু করলেন বলে জানিয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর বলেন পর্যায়ক্রমে নগরীর সব খাল অবৈধ দখল মুক্ত করে হবে।
১৯৮০-৮৫ সালে শীলতক্ষ্যা নদীর সাথে ধলেশ্বরী নদী পর্যস্ত সংযোগ খাল দিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে পন্য নিয়ে নৌকা যোগে নারায়ণগঞ্জে আসতো। পাইকপাড়া, বেপারী পাড়া, এক ও দুই নম্বর বাবুরাইল এলাকার পয়নিস্কাশন ব্যবস্থা ছিল। ৯০ সালের পর এই খাল অস্তিত্ব হারাতে থাকে। অবৈধ দখল ও ভরাটের কারনে সম্পন্নু রুপে বন্ধ হয় যায় এ খাল।#