লাঞ্চিত প্রধান শিক্ষককে পাঠানো হলো বরখাস্তপত্র ॥ ক্ষোভ কমছেইনা প্রভাবশালীদের

554

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: বন্দরে প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চিত করার পরও যেন ক্ষোভ কমছেইনা প্রভাবশালীদের। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই শিক্ষকের কাছে পাঠানো হয়েছে বরখাস্ত পত্র। প্রধান শিক্ষককে নিয়ে কোন সংবাদ প্রচারিত হলেই বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে ক্যাবল টিভি’র সম্প্রচার। ঘটনাস্থলে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়েও বাধার সম্মুখিন হচ্ছে সংবাদ কর্মীরা। এ বিসয়ে সুশীল সমাজ মনে করছেন প্রভাবশালীদের কারনে শেষ পর্যন্ত এ ঘটনার তদন্ত নিরপেক্ষ থাকবে না। অপমানে বিপর্যস্ত প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি’র দাবি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে হবে দেশের বাকি সব শিক্ষকদের সম্মানের স্বার্থেই। এ ঘটনায় তার জীবন এখন নি:শেষ।

আজ বিকেলে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় শিক্ষক শ্যামলকান্তি ভক্ত একবার বসছে একবার শুয়ে পড়ছে । কোন কিছুতেই যেন স্বস্তি নেই তার। তার একটাই কথা তার সব শেষ।
শিক্ষকের সহধর্মিনী জানান, অসুস্থ প্রধান শিক্ষকের শিক্ষকের স্ত্রী নারায়ণঞ্জ তিনশ শয্যা হাসপাতলের সেবিকা। তিনি জানান, তার স্বামী এখন মানষিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছেন। স্বাভাবিক কখাবার্তা বলছেন। তিনি সুষ্ঠ বিচারের দাবি করেন এ ধরনের অপমানের।
অপরদিকে ঘটনার পর থেকে স্কুলের অন্যান্য শিক্ষক ,স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটিসহ এলাকাবাসি ধর্মীয় ব্যাপারে কটুক্তি করার ব্যাপারটি জানা নেই বলে স্পষ্ট বক্তব্য দেন। তবে একটি পক্ষ আজ বন্দরে মানববন্ধন ও গণ স্বাক্ষর নিয়ে ধর্মীয় কটুক্তি করেছে এবং স্যারের জীবন রক্ষার্থে স্থানীয় সংসদ সদস্য তাকে শাস্থি দিয়েছেন এমন একটি ব্যাপার প্রমানীত করার চেষ্টা চলছে। অভিযোগ রয়েছে এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশের সময় ডিসের সংযোগ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জে।

হাসপাতালে চিকিৎসারত শিক্ষককে বরখাস্তের পত্র পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে তাকে এ প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, আমার আর হারানো আর কিছু নাই । আমার সব শেষ। আমার তিনটি মেয়ে ওদের কি হবে। আমি আর আমার মধ্যে নেই। আমার কথা চিন্তা করে আর কি হবে ? আর কোন মানুষ গড়ার কারিগরকে যেন পরিকল্পিতভাবে এমন করা না হয় সে ব্যাবস্থা করা হোক।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন নারায়ণগঞ্জ শাখার সভাপতি, মাহবুবুর রহমান মাসুম জানিয়েছেন, একজন সংসদ সদস্য কোন এখতিয়ারে এ ধরনের শাস্তি দিতে পারেন আমার জানা নেই । সাংবাদিকদের প্রতি হুমকি ধামকি সহ ডিসের সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশ করার সময় ।

নারায়ণগঞ্জ ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি সজীব শরীফ জানিয়েছে, তিনি সংসদ সদস্য বলে তার ক্ষমতার দম্ভোক্তি দেখিয়েছেন। তিনি ঘটনার তদন্ত না করেই এ ধরনের শাস্তি দিতে পারেন না। কোন অভিযোগ প্রমানীত না হওয়ার আগে এবং যতবড় অন্যাই হোক না কেন একজন প্রধান শিক্ষককে এ শাস্তি দিতে পারেন না। পুরো জাতি আজ লজ্জিত ।

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জের সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত রফিউর রাব্বি জানিয়েছেন,এ ঘটনায় যে তদন্ত কমিটি ঘঠন করা হয়েছে তা ওসমান পরিবারে প্রভাবে সঠিক তদন্ত করতে পারবে না। এ সংবাদ প্রচার করতে ক্যাবল টিভি বন্ধ করে প্রতিবন্ধকতা সৃস্টি করা হচ্ছে এবং সংবাদকর্মীদের বাধা দেওয়া হচ্ছে। ####