রূপগঞ্জে পায়ু পথে বাতাস ঢুকিয়ে সাগর বর্মন নামের ১০বছরের শিশু হত্যা

593

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে একটি টেক্্রটাইল ও স্পিনিং মিলে পায়ু পথে বাতাস ঢুকিয়ে সাগর বর্মন নামের ১০ বছরের এক শিশুকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রোববার দুপুরে উপজেলার যাত্রামুড়া এলাকায় অবস্থিত জোবেদা টেক্্রটাইল এ্যান্ড স্পিনিং মিলে এই ঘটনা ঘটে। হত্যাকারীদের চিহ্নিত করতে পুলিশ ৫ শ্রমিককে আটক করেছে।
এদিকে শ্রম আইনে কারখানায় শিশু শ্রমিক নিষিদ্ধ থাকলেও ওই কারখানায় অসংখ্য শিশু শ্রমিককে কাজ করতে দেখা গেছে।
রূপগঞ্জের যাত্রামুড়া এলাকায় অবস্থিত জোবেদা সাইজিং এন্ড স্পিনিং মিলে কাজ করেন নিহত শিশু সাগর বর্মন ও তার পিতা রতন বর্মণ। রোববার দুপুরে কাজ করার সময় কয়েকজন লোকজন সাগর বর্মনের পায়ুপথে মেশিন দিয়ে বাতাস প্রবেশ করালে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং তার পেট ফুলে যায়। তাকে প্রথমে গুরুতর অবস্থায় কাঁচপুর শুভেচ্ছা ক্লিনিকে নেওয়া হয় তাকে। পরে অবস্থার অবনতি ঘটলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত শিশুটি নেত্রকোনা জেলার খালিয়াজুড়ি উপজেলার রাজিবপুর গ্রামের রতন বর্মণের ছেলে। তারা বর্তমানে কারখানার পাশেই বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে। তিন ভাইয়ের মধ্যে সাগর ছোট।
তবে এ ঘটনার পর থেকে মিলে মালিক পক্ষের কাউকে রাত আটটা পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা সবাই পালিয়ে যায়। শ্রমিকরা জানান, তারা শুনেছেন কারখানায় পায়ু পথে বাতাস ঢুকিয়ে সাগর নামে এক শিশুকে হত্যা করা হয়।
নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মতিয়ার রহমান রাতে জানান, তারা প্রাথমিক তদন্তে নিশ্চত হয়েছেন জানিয়েছে বলেন, কারখানার ভেতরেই পায়ূ পথে বাতাস দিয়ে শিশু শ্রমিককে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার জড়িতদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। হত্যাকারীদের চিহ্নিত করতে বেশ কয়েকজন শ্রমিককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মিলে অনেক শিশু শ্রমিককে কাজ করতে দেখা গেছে। তবে শ্রমিকদের বেতনও কম বলে জানা গেছে। কাজ করানো হয় সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এবং দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত। ##