রূপগঞ্জে দোতলা বাড়িতে গ্যাস লাইন থেকে বিস্ফোরণ ॥ ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি

1354

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের বরাব এলাকায় দোতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলায় বিস্ফোরণে ২ জন আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে বিস্ফোরণের ঘটনা ভবনটির একাংশ দেয়াল ও ছাদের কিছু অংশ ধসে পড়েছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ সুপার মঈনুল হক জানিয়েছে, গ্যাস লাইনের সংযোগ থেকে এ বিস্ফোরণ ঘটেছে। বিস্ফোরণের কারণ তদন্তের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমানকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

পুলিশ জানান, রাত ৩ টার দিকে বরাব কবরস্থানের পাশের ওই দোতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলায় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে আশপাশের বিভিন্ন ভবনের জানালার কাঁচ ভেঙে যায়। বিস্ফোরণে ওই বাড়ির দু’জন আহত হয়েছেন। বিস্ফোরণে দগ্ধ ইব্রাহিম ও আয়নালকে পুলিশের হেফাজতে রেখে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। বাড়ি মালিক আবুল খায়ের ও কেয়ারটেকার একজন মহিলাকে পুলিশ আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। বিস্ফোরণের পর থেকেই কুমিল্লা হাউজ নামে এই বাড়িটি ঘিরে রাখে পুলিশ। র‌্যাব-১১ এর একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
সকাল সাড়ে আটটায় পর বোমা বিস্ফোরণ হওয়া বাড়ির ভেতরে ডিএমপি’র বোমা ডিসপোজাল ইউনিট ও সিআইডির একটি বিশেষ দল পৌছে তল্লাশি করেছে।
পরে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মইনুল হক জানান, বরাব কবরস্থানের পাশের ওই দোতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলায় বিকট শব্দে বিস্ফোরণে আশপাশের বিভিন্ন ভবনের জানালার কাঁচ ভেঙে যায়। প্রাথমিক ভাবে বিস্ফোরণের বিষয়টি সন্দেহ জনক হলেও তল্লাশি করার পর নিশ্চিত হওয়া গেছে এটি কোন নাশকতা নয়। এজন্য আতকিংত হওয়ার কিছু নেই।
বিস্ফোরণের কারণ তদন্তের জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোস্তাফিজুর রহমানকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হচ্ছে, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) ফারুক হোসেন, নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ পরিচালক মামুনুর রশিদ, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান ও রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন। ##