ব্যবসায়িকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা: হত্যাকান্ড কেন তদন্ত করছে পুলিশ

176

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আবুল কাশেম(৪০) নামে এক ব্যবসায়ীকে পায়ের নখ তুলে ও পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। রোববার সকালে শহরের অক্ট্রর অফিস সংলগ্ন পৌর স্টেডিয়ামের সামনের বালুর মাঠ থেকে কাশেমের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ একশ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘাতকরা নির্মমভাবে পেটানোর পাশাপাশি পায়ের নখ তুলে ফেলেছিল কাশেমের। কাশেম উত্তর মাসদাইর গাবতলী এলাকার ফোরকানের বাড়ির ভাড়াটিয়া মফিজ বেপারীর ছেলে।
কাশেমের বোন মমতাজ বেগম জানান, শহরের মাসদাইর পুুলিশ লাইন সংলগ্ন জেলা পরিষদের জায়গা লিজ নিয়ে সেখানে  ৪টি দোকান তুলে ৩টি দোকান ভাড়া দিয়েছিল কাশেম। একটি দোকানে সেলুন দিয়ে নিজে কর্মচারী রেখে পরিচালনা করতো। দোকানের পেছনের জায়গার মালিক লতিফ নামে এক ব্যক্তি। সে কয়েক দিন আগে কাশেমের দুটি দোকান জোর করে দখল করে নেয়। এ নিয়ে কাশেমের সঙ্গে জায়গার মালিক লতিফের বিরোধ চলছিল।
কাশেমের দোকানের ভাড়াটিয়া সাগর বলেন, ১০-১২ দিন পূর্বে কাশেমের সঙ্গে পেছনের জায়গার মালিক লতিফের সংঘর্ষ বাধে। এ সময় কাশেম লতিফকে দা নিয়ে ধাওয়া করেছিলো। এর জের ধরেই এ হত্যাকান্ড ঘটতে পারে বলে সে ধারণা করছে।
ফতুল্লা মডেল থানার পিএসআই আব্দুর রহমান জানান, উদ্ধারকৃত লাশের শরীরের অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পায়ের নখ তুলে ফেলা হয়েছে। চরম ক্ষোভ থেকেই এ হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে। দূর্বৃত্তরা তাকে  পিটিয়ে হত্যা করে লাশ বালুর মাঠে ফেলে রেখে গেছে।
ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসাদুজ্জামান খান জানান, প্রাথমিকভাবে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। এ হত্যাকান্ড কেন এবং কারা ঘটিয়েছে তা তদন্ত করছে পুলিশ।#