বন্দরে অন্তঃসত্ত্বা দ্বিতীয় স্ত্রীর গর্ভপাত ঘটানোর মামলায় স্বামী গ্রেপ্তার

82

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জের বন্দরে কোমল পানীয়র সাথে ঔষধ সেবন করিয়ে পাঁচ মাসের অন্ত:স্বত্তা দ্বিতীয় স্ত্রী’র গর্ভপাত ঘটানোর মামলায় স্বামী আনোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে বন্দর উপজেলার চৌধুরীবাড়ি এলাকা থেকে আনোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম ।
বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম গৃহবধুর অভিযোগের বরাত দিয়ে জানান, উপজেলার পুরান বন্দর চৌধুরিবাড়ি এলাকার মৃত সুরুজ মিয়া মেয়ে নিপা আক্তারের সাথে একই এলাকার জলিল মিয়ার ছেলে আনোয়ার হোসেনের সাথে গত বছরের ১২ জুন বিয়ে হয়। বিয়ের পর নিপা আক্তার জানতে পারে তার স্বামী আগে বিয়ে করেছে। সেই ঘরে একটি ছেলে রয়েছে। এ নিয়ে প্রায়ই নিপা আক্তারের সাথে আনোয়ার হোসেনের ঝগড়া হতো। পরে আনোয়ার হোসেন বন্দরের কাজীবাড়ি এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে তাকে নিয়ে বসবাস শুরু করে। একপর্যায়ে নিপা আক্তার অন্ত:স্বত্তা হয়ে পড়লে আনোয়ারের প্রথম স্ত্রী শাহনাজ বেগম গর্ভপাত করাতে ওই বাড়িতে গিয়ে প্রায়ই হুমকি ধমকি দিচ্ছিলো। স্বামী আনোয়ার হোসেন প্রথম স্ত্রী’র কথা মতো গর্ভপাত করাতে দ্বিতীয় স্ত্রীকে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করে আসছিলো। গত ৬ জুলাই তার স্বামী আনোয়ার হোসেন রাত ১০ টার দিকে তার কাজিপাড়ার ভাড়া বাড়িতে আসে । পরে আইসক্রিম ও কোমল পানিয়র সাথে গর্ভপাতের ঔষধ গুড়া করে মিশিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রীকে খাইয়ে দেয়। পরে দিন ৭ জুলাই ভোট পাচটায় দ্বিতীয় স্ত্রী’র গর্ভপাত ঘটে। পরে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বোরবার সকালে গৃহবধু নিপা আক্তার বন্দর থানায় স্বামী আনোয়ার হোসেন, সতীন শাহনাজ বেগম, সতিনের ছেরে সাগরের নাম উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।
বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, গৃহবধুর লিখিত অভিযোগটি মামলা হিসেবে রুজু করা হয়েছে। আসামী আনোয়ার হোসেনকে দুপুরে গ্রেফতার করা হয়েছে। গৃহবধু নিপা আক্তারের মেডিকেল পরীক্ষার জন্য সিভিল সার্জনের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ###