নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের তুঘলকি কান্ড ॥ সিটি কর্পোরেশনকে চিঠি

376

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জ নগরীর চাষাঢ়া থেকে পঞ্চবটী পর্যন্ত একটি রাস্তা নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্মাণ করেছিলো ২০০৯ সালে। রাস্তাটির জায়গা জেলা পরিষদের। সাত বছর পরে জেলা পরিষদ সিটি কর্পোরেশনকে চিঠি দিয়েছে রাস্তাটি পূর্বাবস্থায় ‘জমিতে’ পরিণত করে তাদের ফিরিয়ে দিতে। জনবিরোধী এ সিদ্ধান্তে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটি বলেছে, এ রাস্তার জমি জনগনের কাছ থেকে অধিগ্রহন করা। জনগনের জমি জনগনের কাছ থেকে নিয়ে উন্নয়নমূলক কাজে না লাগিয়ে ‘লিজ’ দেয়ার চেষ্টা করা হলে তা প্রতিহত করা হবে।
শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলননে তারা এ কথা বলেন। নাগরিক কমিটির সভাপতি এডভোকেট এ বি সিদ্দিক এর সভাপতিত্বে এসময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সহ-সভাপতি রফিউর রাব্বি। উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক আব্দুর রহমান, সদস্য আওলাদ হোসেন, গাজী মোখলেসুর রহমান, হাজী আব্দুর রাজ্জাক, তারিক বাবু, সুজিত সরকার।
লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, নারায়ণগঞ্জবাসির দাবী ও নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির আন্দোলনের প্রেক্ষিতে ২০০৯ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন তোলারাম কলেজের সামনে থেকে পঞ্চবটী পর্যন্ত ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের পাশে রাস্তা নির্মাণ করে। যে জায়গার উপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করা হয় সে জায়গার মালিক নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ। সম্প্রতি রাস্তাটির বিভিন্ন অংশে গর্ত সৃষ্টি হয়। এর মধ্যে এলাকাবাসি দাবী তোলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ মূল সড়ক ও সিটি কর্পোরেশনের রাস্তার মাঝের জেলা পরিষদের মালিকানাধীন ডোবা পুরো ভরে ফেলে ও লিজ দেয়া অংশের লিজ বাতিল করে পুরো রাস্তাটি এক করে দেয়ার। গত কয়েকদিন ধরে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন রাস্তাটি মেরামত কাজ শুরু করে। মেরামত কাজ প্রায় অর্ধেক হওয়ার পর জেলা পরিষদ রাস্তার নির্মাণ কাজে বাধা দিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়। তারা রাস্তাটি পূর্বে যে অবস্থায় ছিলো সে অবস্থায় অর্থ্যাৎ জমি হিসেবে জেলা পরিষদকে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য গত ২২ নভেম্বর সিটি কর্পোরেশনকে চিঠি দেয়। এর প্রতিবাদ জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটি বলছে, প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ এ রাস্তাটি ব্যবহার করে। এ রাস্তা পূর্বের অবস্থায় ফেরানো নয় বরং রাস্তার কাজ চালিয়ে যেতে হবে। নগরীর কেন্দ্রস্থলের যানজট কমানোর স্বার্থে চাষাঢ়ার জেলা পরিষদের ডাক বাংলো ভেঙ্গে দিতে হবে। পাশাপাশি এ রাস্তার দু’পাশে থাকা জেলা পরিষদের জায়গার লিজ বাতিল করে সড়ক ও জনপদের রাস্তা ও সিটি কর্পোরেশন নির্মাণ করা রাস্তা এক করে দিতে হবে।
ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের চাষাঢ়া থেকে পশ্চিম দিকে প্রায় এক কিলোমিটার পর্যন্ত মূল সড়কের মালিক সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের ‘সড়ক ও জনপদ বিভাগ, এরপর থেকে পঞ্চবটি পর্যন্ত সড়কের মালিক নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন, এবং রাস্তার উত্তর ও দক্ষিন দিকের ডোবার মালিক জেলা পরিষদ।
বিষয়টির ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক আব্দুল হাই এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, জেলা পরিষদের জায়গায় সিটি কর্পোরেশনের পুরনো যে রাস্তাটি রয়েছে সেটি নিয়ে এখন আমাদের কোন আপত্তি নেই। যখন সিটি কর্পোরেশন রাস্তাটি নির্মাণ করে তখন আমরা আপত্তি করেছিলাম। কিন্তু তারা আমাদের আপত্তি উপেক্ষা করে রাস্তা নির্মাণ করেছে। এখন সিটি কর্পোরেশন আবারো আমাদের জায়গায় রাস্তাটি প্রশস্ত করছে। আমরা নতুন করে জায়গা দখল করে যে রাস্তা নির্মান করছে – এর বিরোধীতা করে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে দিতে বলেছি। এসব জায়গা জেলা পরিষদ লিজ দিয়ে রেখেছে অথবা দেবে বলে জানায়।
তার বক্তব্যের প্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সহ-সভাপতি রফিউর রাব্বি বলেন, জেলা পরিষদের প্রশাসক সঠিক তথ্য দিচ্ছেন না। তারা চিঠি দিয়েছেন একরকম আর কথা বলছেন আরেক রকম। এ রাস্তার জমি জনগনের কাছ থেকে অধিগ্রহন করা। জনগনের জমি জনগনের কাছ থেকে নেয়া হয়েছে উন্নয়নমূলক কাজে লাগানোর জন্য। তা না করে ‘লিজ’ দিয়ে ব্যাক্তি বা গোষ্ঠিকে লিজ দিয়ে লাভবান করার চেষ্টা করা হলে তা প্রতিহত করা হবে। ##