নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের নির্বাচনে পরিবর্তনের পক্ষে রায় দেবেন ভোটাররা

413

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ শনিবার নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের নির্বাচনে পরিবর্তনের হাওয়ায়, অপরাজনীতি, অপসংস্কৃতি, অগণতান্ত্রিক শক্তির বিপক্ষে রায় দিয়ে ভোটারা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে তাদের রায় দেবেন। বিগত পাচঁ বছর ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার হারিয়েছিল। টেবিল ম্যাকিং কমিটিকে ইচ্ছার বিরুদ্ধেও মেনে নিতে হয়েছিল তাদের। আজ নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের ভোটারদের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে একটি গণতান্ত্রিক ধারার নির্বাচনের মধ্য দিয়ে। সন্ত্রাস অপরাজনীতি তথা অন্যায়ের বিরুদ্ধে ভোটাররা তাদের রায় দিয়ে ন্যায় ও গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠা করবে।

যারা পরিবর্তনের পক্ষে একটি শান্তির নারায়ণগঞ্জ গড়ে তোলার পক্ষে, তারা নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের নির্বাচনে পরিবর্তনের পক্ষে রায় দেবেন, এমনটাই জানিয়েছেন নির্বাচনে অংশ গ্রহন করা প্রার্থীরা। নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের নির্বাচনে সভাপতি পদ প্রার্থী এ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান মাসুম কয়েকটি প্রশ্নের জবাবে জানিয়েছেন,

প্রশ্ন: নারায়নগঞ্জ ক্লাবের নির্বাচনে আপনি কেন সভাপতি পদে নির্বাচন করছেন?

এ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান মাসুম :- দেখুন আমি একটা জিনিস বিশ^াস করি, নারায়ণগঞ্জ ক্লাব একসময় ইউরোপিয়ান ক্লাব ছিল।পরে স্বাধীনতার পর এটি নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে রূপান্তরিত হয়। গত পাচ বছর নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে চলেছে অগনতান্তিক চর্জা অপসংস্কৃতি। একটি প্রভাবশারী মহল একটি পরিবারের দুইজন সদস্য তারা শুধু নারায়ণগঞ্জ ক্লাব না সারা নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন ব্যাবসায়ী ও সামাজিক সংগঠনগুলো আছে সেখানে নির্বাচন বন্ধ রেখে, প্রভাব বিস্তার করে নিজেদের লোক বসিয়ে নিজেদের প্রভাব বহাল রেখেছে। সেই দিক থেকে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের নির্বাচনে গত বছর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন থাকায় ওই প্রভাবশালী মহল নিজেদের পছন্দের কমিটি চাপিয়ে দেয়া হয়েছিল। তখন সিটি নির্বাচনের কারনে কেই নজর দিতে পারেনি। পকেট কমিটি করে দেয়া হয়েছিল। নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের নির্বাচনে এবারও পকেট কমিটির পায়তারা করেছিল। সে ক্ষেত্রে নির্বাচন করার জন্য সবাইকে আহবান করলে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। আমার নির্বাচন করার কথা ছিল না। মূলত এ অপসংস্কৃতি অগণতান্ত্রিক নির্বাচনের ধারাটাকে ভাঙ্গার জন্য এবং গনতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনার জন্য আমি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। এ নির্বাচন আমার জন্য একটি চ্যালেঞ্জ, কারন নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে হবে, এ ক্লাবকে দুর্নীতিমুক্ত ক্লাব করতে হবে, সারাদেসের মধ্যে একটি যুপযুগী ক্লাব হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এবং সদস্যদের ফ্যাসেলিটি বাড়াতে হবে। সদস্যদের চাহিদা অনুযায়ী ক্লাব পরিচালনা করতে হবে। কারো ব্যাক্তি বিশেষের খেয়াল খুশি মত যেন ক্লাব পরিচালিত না হয় সেটা প্রতিহিত করতে হবে। এ নির্বাচনের রায় আমাদের পক্ষে গেলে এ ক্লাবকে গনতান্তিক ধারা ফিরিয়ে আনবো। এটি এলিট শ্রেনীর ক্লাব। এটা ঐতিহ্য ফিরিয়ে এনে পজিটিভ একটি ক্লাব গড়ে তুলতে হবে।

প্রশ্ন : পাচঁ বছর ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পারেনি। ভোটারদের নিয়ে আপনার মূল্যায়ন কি ?

এ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান মাসুম :- ক্লাব মেম্বারদের বিপুল সাড়া পেয়েছি। মেম্বারদের ভিতরে যে হতাশা কাজ করেছিল তারা পাচঁটি বছর কোন নির্বাচনে ভোট দিতে পারেনি। তাদের কেউ জি¹েস করেনি। তাদের কাছে কেউ ভোট চাইতে জায়নি। নির্বাচনের উৎসবমুখুর আমেজ তারা উপভোগ করতে পারেনি। আগে ক্লাব সদস্যদের মধ্যে গুটি কয়েক সদস্য নিয়মিত ক্লাবে আসতো। তারা ক্লাব ব্যাবহার করতো না। এবারের নির্বাচনে বিপুল সদস্য ক্লাবে আসছে। তারা একটি উৎসবমুখুর সুন্দর পরিবেশে নির্বাচনের প্রক্রিয়ায় অংশ নিয়েছে। মানুষ যে পরিবর্তন চায় এ পরিবর্তেনের হাওয়া নারায়ণগঞ্জ ক্লাব নির্বাচনে পুরোধমে লেগেছে। এ পরিবর্তনের হাওয়া সাড়া নারায়ণগঞ্জে ছড়িয়ে দিতে হবে। সব সংগঠনকে নির্বাচন করাতে হবে। কারো বলবৃত্ত হয়ে এসব সংগঠন প্রভাবিত হবে না। তাই ভোটাররা এবার পরিবর্তনের পক্ষেই তাদের রায় দেবেন।

আমি সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে অভিনন্দন জানাই। তিনিও আমাদের সাথে যোগ দিয়েছেন, তিনি সৎ লোককে ভোট দিতে বলেছেন। যারা পরিবর্তনের পক্ষে আমাদের আমাদের সমর্থন করেছেন। মেয়রের যে ধারাবাহিকতা নারায়ণগঞ্জকে নিয়ে যে চিন্ত ভাবনা। একটি শান্তির নারায়ণগঞ্জ গড়ে তোলার এটি একটি পদক্ষেপ। নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের এ পরিবর্তনের পর থেকেই শুরু হবে নারায়ণগঞ্জের সকল সংগঠনে পরিবর্তনের হাওয়া লাগবে। আমি বিশ^াস করি, সকল সংগঠনে গনতান্ত্রিক উপায়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

প্রশ্ন: আগের কমিটি অর্থ ক্যালেঙ্করি সব মিলিয়ে নির্বাচন নিয়ে ভোটারদের কেমন ভাবনা, জয়ি হলে কি পরিবর্তন করবেন।

এ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান মাসুম :- আগের কমিটিতে দুর্নীতির যে কেলেঙ্কারি হয়ে গেছে, এ সব অনিয়ম
পরিবর্তনের পক্ষে আসুন, আমরা একটি ভাল নারায়ণগঞ্জ ক্লাব দেখতে চাই। এ ক্লাব আমাদের সম্পদ আমরা এটাকে সর্বোত্তম ব্যাবহার করতে চাই। সকল সদস্যদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে আমরা একটা ভালবাসার ক্লাব গড়ে তোলতে চাই। কোন রকম দুর্নীতি অনিয়র প্রশ্রয় দেয়া হবে না। তাই ভোটাররা আমাদের পক্ষে রায় দেবেন। ভোটাররা চায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের ঐহিয্য ফিরিয়ে আনতে।

প্রশ্ন: আপনি একটি বড় শক্তির বিরুদ্ধে সাহস যে চ্যালেঞ্জ দেখিয়ে নির্বাচন করছেন,ভোটারদের মধ্যেও কি এ ধরনের সাহস পরিবর্তন দেখেছেন কি। সর্বপরি ভোটারদের কি বলবেন।

এ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান মাসুম :- অবশ্যই ভোটারদের সাহসেই আমি নির্বাচন করছি। তারা বিগত সময়ে ভোট দিতে পারতো না এখন তারা ভোট দিতে পারছে এটাই প্রাথমিক বিজয় এবং ভোটারা পরিবর্তনের পক্ষে তাদের রায় দেবেন। ইনশাল্লাহ বিজয় আমাদের। বিজয় সত্ব্যের পক্ষে অপশক্তির বিপক্ষে থাকবে। ###