না’গঞ্জ ৩শ’ শয্যায় চিকিৎসক ছাড়াই প্রসুতির ডেলিভারীর চেষ্টা, নবজাতকের মৃত্যু

207

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম, 28 February 2014 at 07:25 pm : নারায়ণগঞ্জ তিনশ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসক ছাড়াই নার্স ও আয়ারা মিলে এক প্রসুতির ডেলিভারী করার চেষ্টা করায় নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রসুতির স্বজনরা হাসপাতালে ক্ষোভে ফেটে পড়ে। ঘটনার প্রতিবাদ করায় নার্স ও আয়ারা প্রসুতি আমেনা বেগমকে মারধরও করে বলে অভিযোগ রয়েছে।
শুক্রবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে শনিবার সকালেই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছে।
জানা গেছে, বন্দরের আমিন আবাসিক এলাকার বাসিন্দা সেলিমের স্ত্রী আমেনা বেগমের প্রসব বেদনা উঠলে শুক্রবার ভোর রাত সাড়ে ৪ টায় তাকে শহরের খানপুরস্থ তিনশ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. নাজিম খান তাকে ১৮ নং ওয়ার্ডে ভর্তি হতে বলেন। প্রসুতি ১৮ নং ওয়ার্ডে ভতি হলে কর্তব্যরত ২ নার্স বিউটি ও আম্বিয়া খাতুন এবং ২ আয়া মমতাজ ও রহিমা ওই প্রসুতির ডেলিভারীর চেষ্টা করে। সকাল ৬ টা ৪০ মিনিটের দিকে আমেনা বেগম মৃত পুত্র সন্তান প্রসব করে। আধাঘন্টা পর নার্স ও আয়ারা চিকিৎসক ডা. দীপান্বিতা হককে ফোন করে জানায় শিশুটি মারা গেছে। এর প্রতিবাদ করলে প্রসুতি আমেনা বেগমকে ওই সময় আয়া মমতাজ চড় থাপ্পড় মারে ও গালগাল করেন।
এদিকে নার্স ও আয়াদের গাফিলতির কারণে শিশুর মৃত্যুর খবর শুনে সকালে হাসপাতালে ছুটে আসেন হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সুপার ডা. জাহাঙ্গীর আলম, এনেসথেসিয়া ডা. আমিনুল ইসলাম, শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. বিধান চন্দ্র, গাইনী বিভাগের ডা. দীপান্বিতা হকসহ অন্যরা।
হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সুপার জাহাঙ্গীর আলম জানান, শনিবার সকালে এ বিষয়ে আইন অনুযায়ী দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। #