ত্বকী হত্যার বিচারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ প্রয়োজন: বিবৃতিতে ২১ বিশিষ্ট ব্যক্তি

482

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার বিচারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা চেয়ে দেশের ২১ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি বিবৃতি প্রদান করেছেন। আজ বুধবার দুপুরে এক বিবৃতিতে বিশিষ্ট ব্যাক্তিরা এ দাবি করেন।
বিবৃতিতে তারা বলেন, “ নারায়ণগঞ্জের মেধাবী কিশোর তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীকে হত্যা করা হয় ৬ মার্চ ২০১৩। এ হত্যাকান্ডের ৪ বছরেও মামলার অভিযোগপত্র না দেয়ায় আমরা ব্যথিত ও ক্ষুব্ধ। সংবাদমাধ্যমে আমরা জেনেছি এ হত্যার সাথে জড়িত একাধিক ঘাতক ১৬৪ ধারায় জবানবন্দির মাধ্যমে হত্যা সম্পর্কে বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছেন। গত ৩ বছর আগে এ হত্যার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ হত্যার বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে উপস্থিত সংবাদকর্মীদের একটি খসড়া অভিযোগপত্র প্রদান করেছেন। কিন্তু অদ্যাবধি সে অভিযোগপত্র আদালতে পেশ করা হয় নাই।
আমরা দ্রুত অভিযোগপত্র প্রদানের জন্য ও এ নির্মম হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ বিচার সম্পন্ন করার জন্য প্রজাতন্ত্রের নির্বাহী প্রধান হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নির্দেশ প্রদানের জন্য আবেদন জানাচ্ছি।
বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন, আহমদ রফিক, ড. আনিসুজ্জামান, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, ড. সনজীদা খাতুন, কামাল লোহানী, অধ্যাপক হাসান আজিজুল হক, অধ্যাপক যতীন সরকার, ড. বদিউল আলম মজুমদার, ড. হায়াৎ মামুদ, ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, সৈয়দ আবুল মকসুদ, অধ্যাপক শান্তনু কায়সার, ড. সফিউদ্দিন আহমদ, ডা. সারোয়ার আলী, ড. মালেকা বেগম, অধ্যাপক শফি আহমেদ, মামুনুর রশীদ, আয়েশা খানম, মফিদুল হক, অধ্যাপক এম এম আকাশ ও অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।
ত্বকী হত্যাকান্ডের চার বছর পূর্ন হচ্ছে আগামী ৬ মার্চ। ২০১৩ সালের ১৩ মার্চ বাসা থেকে পাঠাগারের উদ্দেশ্যে বের হওয়ার পর নিখোজ হয় তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী। ত্বকীর বাবা নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব। ৮ মার্চ শীতলক্ষ্যা নদীর কুমুদীনি খালে ত্বকীর লাশ পাওয়া যায়। ত্বকী হত্যার গ্রেফতারকৃত আসামী সুলতান শওকত ভ্রমর আদালতে দেয়া স্বিকারোক্তিমুলক জবানবন্দিতে জানায়, আজমীর ওসমানের নেতৃত্বে নগরীর তোলারাম কলেজ এলাকায় আজমীর ওসমানের অফিসে তার উপস্থিতিতে ত্বকীকে হত্যা করা হয়। এ মামলায় গ্রেফতারকৃত ভ্রমর, জ্যাকি ও লিটন আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হয়। ভ্রমর জামিন পেয়ে পালিয়ে দেশের বাইরে চলে গেছে। ত্বকী হত্যাকান্ডে আজমীর ওসমানের এগারোজন ক্যাডার অংশ নেয়। ত্বকী হত্যাকান্ডের জন্য শুরু থেকেই রফিউর রাব্বি ওসমান পরিবারকে দায়ী করে আসছেন। আজমীর ওসমান প্রয়াত এমপি জাপা নেতা নাসিম ওসমানের ছেলে। এবং বর্তমান এমপি শামীম ওসমান ও সেলিম ওসমানের ভাতিজা। ত্বকী হত্যার বিচারের দাবীতে কর্মসূচীতে বিভিন্ন সময়ে হামলা বা বাধার সৃষ্টি করার চেষ্টা করে আসছে ওসমান পরিবার ও তাদের অনুগত ক্যাডাররা। #