খুনিরা সংখ্যায় ছিলো তিনজন

227

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: সিআইডির নারায়ণগঞ্জ জোনের সহকারি পুলিশ সুপার এহসান উদ্দিন চৌধুরী বলেন, খুনিরা সংখ্যায় অন্তত তিনজন ছিল। তবে খুনিরা নিহতদের পরিচিত এবং নিহতদের বাসায় নিয়মিত যাতায়াত ছিল বলেও তাদের ধারণা। যে কারণে খুনিরা সহজেই ওই বাসায় প্রবেশ এবং ঘটনা ঘটিয়ে নির্বিঘেœ বের হয়ে যেতে পেরেছে। তিনি জানান, প্রায় নয় মাস আগে তাছলিমা ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জে এসে বসবাস শুরু করেন। এর প্রধান কারণ ছিল সুদের ব্যবসা। তাছলিমা বিভিন্নজনের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে সেই টাকা চড়া সুদে বিভিন্নজনকে দিতেন। এ কারণে পাওনাদাররা তার কাছে তাগাদা দিতে শুরু করলে তিনি আত্মগোপন করেন। প্রথমে তিনি নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার হোসেনপুর, এর পর বন্দর এবং সর্বশেষ বাবুরাইলে বসবাস শুরু করেন। বাবুরাইলের বাসায় তারা তিন মাস ধরে থাকছিলেন। ##