এনসিসি নির্বাচনে মেয়র পদে ১,কাউন্সিলর ৯৪ ও সংরক্ষিত পদে ১৮ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ

651

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বিতরণ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু করেছে জেলা নির্বাচন কমিশন। মনোনয়নপত্র সংগ্রহের জন্য সকাল দশটা থেকে জেলা নির্বাচন কার্য্যালয়ে প্রার্থী ও সমর্থকরা ভীড় করতে শুরু করেন। তবে মনোনয়নপত্রের মুল্য, জামাতের টাকা ব্যাংকে জমা দেয়া সংক্রান্ত নির্বাচন কমিশনের প্রজ্ঞাপন আগে না জানার কারণে মনোনয়নপত্র ছাড়াই বেশিরভাগ মনোনয়নপত্র ক্রেতা ফিরে যান। মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে আসা প্রার্থীরা বলছেন, জামানতের টাকা আগে জমা দেয়ার বিষয়টি নির্বাচন কমিশন পূর্ব থেকে জানিয়ে রাখলে তাদের এ বিরম্বনায় পড়তে হতো না। দিন শেষে মেয়র পদে একজন, সাধারন কাউন্সিলর পদে ৯৪ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ নুরুজ্জামান তালুকদার জানান, এবারের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহের আগে ব্যাংকে ট্রেজারী চালানের পাশাপাশি মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত আসনের প্রার্থীর জন্য নির্দিষ্ট হারে জামানতের টাকা জমা দেয়ার বিধি করা হয়েছে। প্রার্থীরা বিষয়টি আগে থেকে না জানার কারণে প্রস্তুতি ছাড়াই মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে এসে বিরম্বনায় পড়েছেন।
নুরুজ্জামান তালুকদার নির্বাচন কমিশনের জারি করা প্রজ্ঞাপনের বরাত দিয়ে আরো জানান, নির্বাচনে মেয়র পদে জামানত হিসেবে ২০ হাজার টাকা জমা রাখতে হবে। সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত আসনের সদস্যের জন্য ভোটার সংখ্যা অনুযায়ী ১০ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা এবং শুধুমাত্র ১ ও ১৩নং ওয়ার্ডে ৩০ হাজার টাকা ধার্য্য করা হয়েছে। জামানতের এই টাকা সোনালী ব্যাংকের নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় অবস্থিত কর্পোরেট শাখায় জমা দিতে হবে । আজ বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে আসা প্রার্থীরা প্রজ্ঞাপণের বিষয়টি না জানার কারণে জামানতের টাকা জমা না করেই নির্বাচন কার্য্যালয়ে এসেছেন।
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড এর বর্তমান কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে এসে এই বিরম্বনায় পড়ে জানান, জেলা নির্বাচন কমিশন প্রজ্ঞাপনটি আজকে না টানিয়ে দুইদিন আগে টানালে আগে থেকে প্রস্তুতি নেয়া যেতো। ফলে নতুন নিয়মের কারণে নির্বাচন থেকে তারা দুইদিন পিছিয়ে পড়লেন। তিনি বলেন, এর আগের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় প্রদান করতে হতো। এবার জামানতের টাকা পরিশোধ করার পর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে হবে। এছাড়া তিনি চেয়েও তার ওয়ার্ডের ভোটার তালিকা নির্বাচন কমিশন থেকে পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেন তিনি।
মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে আসা নারায়ণগঞ্জ নগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামাল বলেন, দলের হাইকমান্ড যদি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সিদ্ধন্ত নেয় তবে তিনি দলের নির্দেশ পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহন করতে আগ্রহী।
দিন শেষে বিকেল পাঁচটায় মেয়র পদে মাত্র একজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। বাংলাদেশ কল্যান পার্টির পক্ষ থেকে রাশেদ ফেরদৌস সোহেল মিয়া মেয়র পদে প্রথম মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। তিনি জানান, দুপুরে দলের কেন্দ্রীয় কার্য্যালয় থেকে তাকে মেয়র পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার নির্দেশ দিলে তিনি তড়িঘড়ি করে ব্যাংকে জামানতের টাকা প্রদান করে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।
প্রার্থীদের বিরম্বনার অভিযোগের বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরশ নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার মো: নুরুজ্জামান তালুকদার জানান, প্রার্থীরা যাতে নিয়ম কানুন জেনে সঠিক নিয়মে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারে এবং তাদের সুবিধার জন্যই এই প্রজ্ঞাপণ জারি করা হয়েছে। তবে তিনি দাবী করেন এই নিয়ম আগেও ছিল। মনোনয়নপত্র সংগ্রহের পর কোন প্রার্থী নির্বাচনে অংশ না নিলে পরে তার জামানতের টাকা ফেরতযোগ্য জানিয়ে রিটার্নিং অফিসার বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে নির্বাচন কমিশন থেকে সব ধরণের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি জানান, এখন পর্যন্ত সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রয়েছে।#