বন্দরে প্রতিবন্ধী পিতার অলম্বন মেয়ে সীমা আক্তার বিদেশে গিয়ে নিখোঁজ

40

বন্দর প্রতিনিধি: বন্দরের কুড়িপাড়া এলাকার প্রতিবন্ধী মনা মিয়ার একমাত্র অবলম্বন মেয়ে সীমা বিদেশে যাওয়ার পর নিখোঁজ রয়েছে। প্রতিবন্ধী পিতা তার কোন সন্ধ্যান ও টাকা না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। মেয়ের খোঁজ পেতে নাসিক ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান বাবুলের সহযোগিতা চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সীমা আক্তারকে ৬ মাস পূর্বে বন্দরের তিনগাঁও এলাকার কেরামত আলী মাস্টারের মেয়ে আদম বেপারী ডলি বেগম বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে সৌদী আরবে পাঠায়। সীমা আক্তার বিদেশে গিয়ে তার পরিবারের সাথে আর কোন যোগাযোগ করতে পারেনি। দীর্ঘ ৬ মাসে সে দেশে কোন টাকাও পাঠায়নি। প্রতিবন্ধী পিতা মনা মিয়া মেয়ের সন্ধ্যান পেতে আদম বেপারী ডলি বেগমের দ্বারস্থ হলে উল্টো আদম বেপারী ডলি বেগম তাদের গালাগাল দিয়ে তাঁড়িয়ে দেয়। নিরুপায় হয়ে প্রতিবন্ধী মনা মিয়া স্থানীয় কাউন্সিলরের স্বরণাপন্ন হন। কাউন্সিলর আদম বেপারী ডলি বেগমকে ২০ বার ফোন করলেও ডলি বেগম কোন জবাব দেননি। পরে তিনি মনা মিয়াকে আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দেন। এ ব্যপারে আদম বেপারী ডলি বেগমের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমার বস সৌদী গেছেন, তিনি সীমা বেগমের খোঁজ নিয়ে আসবে। আর আমি ২/১ দিনের মধ্যে সীমার সাথে তার পরিবারের সাথে কথা বলিয়ে দেব। আর তাদের একাউন্ট নাম্বার আমাকে দিলে আমি টাকা আনিয়ে দেব। এ দিকে এলাকাবাসী জানান, ডলি বেগম আদম পাচারের দালাল। সে কোন এক এজেন্সীর দালাল হিসেবে কাজ করে। আর মহিলাদের বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশে পাচার করে। প্রশাসন তার বিষয়ে খতিয়ে দেখলে অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে। #