নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে তিনদিনের নারী সাংবাদিক বুনিয়াদি প্রশিক্ষন সম্পন্ন

49

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: বাংলাদেশ প্রেস ইনষ্টিটিউট এর মহাপরিচালক শাহ্ আলমগীর বলেছেন, ভালো সাংবাদিক তিনি-ই যিনি মানুষের প্রতি দেশের প্রতি প্রতিশ্রুতিশীল। সৎ, বস্তুনিষ্ট সাংবাদিকতার মাধ্যমে আমাদের সাংবাদিকতা পেশাকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তথ্য নিয়ে যেমন সাংবাদিকতা হয় তেমনি অপ সাংবাদিকতাও হয়। গনমাধ্যমের জনগনকে প্রভাবিত করার ক্ষমতা রয়েছে। এ ক্ষমতাটি যাতে অপব্যবহার না হয় সেদিকে আমাদের খেয়াল রাখতে হবে। নারীরা না এগুলে সমাজ এগোতে পারেনা। কারন আমাদের সমাজের অর্ধেকই নারী। সমাজকে এগুতে হলে সমাজের সব মানুষকে নিয়ে এগুতে হয়। সাংবাদিকতা পেশায় আসা সহজ। কিন্তু থাকাটা সহজ না। একজন সাংবাদিক নিউজ লেখার জন্য চাকরিচ্যুত হতে পারেন, হামলার শিকার হতে পারেন, মামলায় জড়াতে পারেন। কিন্তু তাকে অবিচল থাকতে হবে তিনি সবকিছুর পরেও সত্য লিখে যাবেন। এসব ঝুকির কথা জেনেই আমাদের সাংবাদিকতায় আসতে হবে।
মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে নারায়ণগঞ্জের নারী সাংবাদিক ও সম্ভাব্য নারী সাংবাদিকদের জন্য আয়োজিত প্রশিক্ষন কর্মসূচী শেষে সনদপত্র বিতরন অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। বাংলাদেশ প্রেস ইনষ্টিটিউট প্রশিক্ষনটি আয়োজন করেছিলো। সমাপনি অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এডভোকেট মাহবুবুর রহমান মাসুমের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গন যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মফিজুর রহমান, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার সাবেক প্রধান বার্তা সম্পাদক কবি হালিম আজাদ, পিআইবির সিনিয়র ট্রেইনার রাফিজা রহমান, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক শরীফ উদ্দিন সবুজ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রফিক।
অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গনযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মফিজুর রহমান বলেন, পেশা হিসেবে সাংবাদিকতা এখন প্রতিষ্ঠিত। আগে সংবাদপত্রের অফিসগুলি ছিলো খুবই অপরিসর। ঝকঝকে তকতকে বিষয়টি তখন ছিলোনা। এখনকার গনমাধ্যমে অফিসগুলি অনেক দৃষ্টি নন্দন। তবে এখন বানানো তথ্যের, মিথ্যা দিয়ে ভরা নিউজের চর্চাও অনেক বেড়েছে। আমাদের এসব নিউজ সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে। সাংবাদিক কোনো ফেব্রিকেটেড নিউজ পরিবেশন করবেন না এটাই সবাই প্রত্যাশা করে।
নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এডভোকেট মাহবুবুর রহমান মাসুম বলেন, গুটিকয়েক লোকের জন্য সাড়াদেশে নারায়ণগঞ্জের বদনাম। নারায়ণগঞ্জে সেভেন মার্ডার হয়, ফাইভ মার্ডার হয়, জোড়া খুন হয়। শুনলে মনে হয় যেন আমরা নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দারা একেকজন সন্ত্রাসী। কিন্তু নারায়ণগঞ্জে সন্ত্রাস করে গডফাদারতন্ত্র। নারায়ণগঞ্জের বাকি মানুষ শান্তিপ্রিয়, নিরিহ, অনেক ভালো। এই গডফাদারতন্ত্র ভেঙ্গে দিতে নারায়ণগঞ্জের সাংবাদিকদের কাজ করতে হবে। গডফাদার নারায়ণগঞ্জে হলুদ সাংবাদিক, অপসাংবাদিক, ইমোশনাল ব্ল্যাক মেইলার লালন করে। নতুন সাংবাদিকরা সাহসি হয়ে কাজ করলে, বস্তুনিষ্ঠ হয়ে কাজ করলে গডফাদারতন্ত্রের এই অপসাংবাদিকতার ব্যারিয়ার অপসারিত হবে। #