জিকা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু ইেন-স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক

199

আড়াইহাজার প্রতিনিধি: স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, জিকা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। সরকার এ বিষয়ে সকল প্রকার প্রস্তুতি নিয়েছে। জিকা ভাইরাস কোন প্রাণঘাতি কিছু নয়। এটি এডিস মশার কামড়ের মাধ্যমে ছড়ায়। এটি ব্রাজিল ও আশপাশের কয়েকটি অঞ্চলে দেখা গেছে। তারা সেটিকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে। আমাদের এই অঞ্চলে এই ভাইরাস এখনো দেখা যায়নি। আমরা আশা করছি আমাদের দেশে দেখা যাবে না। বাংলাদেশে এই ভাইরাস কখনো ছিল না, এখনও নেই। আমরা যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত আছি।
বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে জবেদ আলী মেমোরিয়াল হাসপাতালের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
আড়াইহাজার পৌরসভার মেয়র মো: হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জন ডাঃ আশুতোষ দাস, আড়াইহাজার উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ্ জালাল মিয়া, বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ সায়মা ইসলাম ইভা,উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট আঃ রশিদ ভুইয়া প্রমুখ।
স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক আরো বলেন, এর আগে ইবোলা ভাইরাস আফ্রিকাতে ছড়িয়ে ছিল। তখন আমরা সমস্ত প্রস্তুতি দেশে নিয়েছিলাম। সকল বিমানবন্দর ও স্থলবন্দরগুলোতে আমরা আইসোলেশন ও ডিটেকশন মেকানিজম লাগিয়েছিলাম। ফলে আমাদের দেশে ইবোলা ভাইরাস আসতে পারেনি। আতঙ্কিত হওয়ারও কোন কারণ ছিল না। আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তর সব সময় সজাগ। আমরা যে কোন অসুখ, ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া বা মশা দ্বারা যে রোগ ছড়ায় এসব নিয়ন্ত্রণে আমাদের ব্যবস্থা রয়েছে। আমি দেশের মানুষকে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আমাদের সকল প্রকার প্রস্তুতি রয়েছে।
বেসরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোর সেবার মানের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একজন পরিচালক রযেছে, তারা দেশের সকল হাসপাতাল ও ক্লিনিক ও ব্লাড ব্যাংকগুলো প্রতিনিয়ত পরিদর্শন করে থাকেন। সেখানে তারা কোন নিয়ম ভঙ্গ করলে জরিমানা, অনেক ক্লিনিক ও হাসপাতাল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে কেউ বা কোন গোষ্ঠি যদি ছিনিমিলে খেলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এর আগে প্রতিমন্ত্রি হাসপাতালের ফলক উন্মোচন করে শুভ উদ্বোধন করেন ও দোয়ায় অংশ গ্রহন করেন এবং হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখেন। #