আড়াইহাজারে স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়ে যাওয়ার সময় মাদকাসক্ত স্বামী গ্রেফতার

2712

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: আড়াইহাজারে কুপিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়ে যাওয়ার সময় মাদকাসক্ত স্বামী জাকির হোসেনকে(৪০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহত স্ত্রীর নাম সুমনা আক্তার(৩৫)। আজ মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে সুমনার ময়না তদন্তের কাজর সম্পন্ন হয়। পুলিশ জানিয়েছে গ্রেফতারকৃত ঘাতক স্বামীকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করছে। এ ঘটনায় আড়াইহাজার থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সোমবার রাতে উপজেলার গোপালদী পৌরসভার উলুকান্দী এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, ঐ দিন উপজেলার সবচেয়ে বড় মাদক ব্যবসা কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত উলুকান্দীর মৃত শুক্কুর আলী মেম্বারের বাড়িতে তার ছেলে মাদক বিক্রেতা জাকির,তার ভাই মুঞ্জুর আলী সহ তার অন্যান্য ভাইদের মধ্যে ঝগড়া হয়। এ ঝগড়াকে কেন্দ্র করে জাকিরের স্ত্রী সুমনা আক্তার তার ভাসুর মুঞ্জুর আলীর পক্ষ নিয়ে কথা বলে। রাতে জাকির হোসেন তার ভাই মুঞ্জুরের বাথরুমে গোসল করার সময় তার স্ত্রী সুমনা আক্তারকে পানির জন্য ডাকাডাকি করে। সুমনা আক্তার দেরীতে পানি নিয়ে যাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে জাকির হোসেন দাড়ালো দা নিয়ে স্ত্রী সুমনা আক্তারকে এলোপাথারী কুপায়। পরে সুমনার মুখে কাপড় দিয়ে শ্বাসরোধ করে ঘটনাস্থলেই হত্যা করে পালিয়ে যাওয়ার পথে বাড়ির লোকজন মাদকাসক্ত স্বামী জাকির হোসেনকে আটক করে। পরে গোপালদী ফাড়ি পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করে এবং নিহত সুমনা আক্তারের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করে।
তবে এলাকাবাসী এ হত্যা কান্ডের ঘটনায় স্বামী জাকির সহ বাড়ির আরো লোকজন জড়িত থাকতে পারে বলে জানায়।
গোপালদী পুলিশ ফাড়ির ইন্সপেক্টর আহসানউল্লাহ জানান, ঘাতক স্বামী জাকির হোসেন ও নিহত স্ত্রী সুমনা আক্তার সহ এ পরিবারের প্রায় সবাই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে এক ডজনের বেশী মাদক মামলা রয়েছে।
এ ব্যাপারে আড়াইহাজার থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন জানান, স্বামী জাকিরকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। আরো কেউ জড়িত থাকলে তাদেরও গ্রেফতার করা হবে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিল। #