আড়াইহাজারের কিশোর হাবিবুল্লাহ হত্যা মামলার পাঁচ আসামীকে জেল হাজতে প্রেরণ

104

নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের কিশোর হাবিবুল্লাহ (১৬) হত্যা মামলার পাঁচ আসামীকে জেল হাজতে পাঠিয়েছে আদালত। বুধবার দুপুরে তারা আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করে। আদালত তাদের জামিনের আবেদন বাতিল করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত ১০ জুন প্রতিবেশী কয়েকজন মিলে তাকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ নিহতের বাড়িতে এনে ঝুলিয়ে রাখে। ঘটনাটিকে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করে।
নিতের বোন শরিফা বেগম জানান, ‘আড়াইহাজার উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের নৈকাহন গ্রামে আমাদের বাড়ি। সুমনের বোন আমাদের বাসায় এসে বাজে ছেলেদের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলতো। আমার ভাই হাবিবুল্লাহ এতে বাধা দেয়। এর জের ধরে আসামীরা তাকে রাত নয়টা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে। আসামীরা পরস্পরের আত্মীয়। হত্যার ঘটনার পর এরা হাবিবুল্লাহ আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচারের চেষ্টা করে। আমার বাবা রতন মিয়া থানায় মামলা করতে গেলে তারা জোর করে একটি কাগজে আমার বাবার সাক্ষর নেয়। সেখানে তারা লেখে যে আমার ভাই পাগল ছিলো, সে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশকে প্রভাবিত করে তারা সে কাগজটিই জিডি হিসেবে গ্রহন করায়। কিন্তু আমরা হত্যা মামলা করতে গেলেও পুলিশ আমাদের মামলা গ্রহন করেনি। পরে আমরা এ ব্যাপারে আদালতে মামলা করলে আদালত পিবিআইকে তদন্ত করার নির্দেশ দেয়। আমরা আটজনকে মামলায় আসামী করেছিলাম। পিবিআই তদন্ত করে মোস্তফা, জাহানারা, সুমন, রাসেল ও জাকারিয়াকে দোষি সাব্যস্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করে। চার্জশীটের প্রেক্ষিতে গত ২৯ অক্টোবর আদালত আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। গ্রেফতারি পরোয়ানা এখনো আড়াইহাজার থানায় পৌছায়নি।
মামলার বাদি পক্ষের আইনজীবি এডভোকেট আজহারুল ইসলাম জানান, মামলার পাঁচ আসামী আজ বুধবার নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট (গ অঞ্চল) আবতাবুজ্জমানের আদালতে এসে জামিনের আবেদন করে। আদালত তাদের জামিনের আবেদন না-মঞ্জুর করে তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।#